DailyMoulvibazar.com
মৌলভীবাজারসোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. এভিয়েশন
  6. করোনা সর্বশেষ
  7. কৃষি ও প্রকৃতি
  8. ক্যাম্পাস
  9. খেলা
  10. গণমাধ্যম
  11. চাকুরি
  12. ছোটদের পোস্ট
  13. জাতীয়
  14. জোকস
  15. ট্যুরিজম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

করোনা জয় করে বাড়ি ফিরলেন যমজ সন্তানের মা

Ayesha Begum
সেপ্টেম্বর ১০, ২০২১ ৮:৪৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিউজ ডেস্ক:: যমজ সন্তান জন্মের পর ১০ দিনের মাথায় মা করোনায় আক্রান্ত হন। অবস্থা খারাপ হতে থাকে। ভর্তি করতে হয় হাসপাতালে। এদিকে মাকে না পেয়ে দুধের জন্য কাঁদছিল সন্তান দুটি। সেই দুঃসময় পার হয়ে গেছে এখন। অবশেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন মা। আর মায়ের কোলে ফিরেছে তাঁর দুই সন্তান। এ ঘটনা সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার।

গত ১৫ আগস্ট উপজেলার সৈয়দপুর গোয়ালগাঁও গ্রামের নির্মাণশ্রমিক সুফি মিয়া ও গৃহিণী সৈয়দা রিনা বেগমের ঘর আলো করে আসে যমজ ছেলে। সিলেটের একটি বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে রিনা যমজ ছেলের জন্ম দেন। এ আনন্দের মধ্যে রিনার করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। ২৪ আগস্ট নমুনা পরীক্ষায় তাঁর করোনা শনাক্ত হয়।

প্রথমে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হলেও শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ২৫ আগস্ট রাতে রিনাকে সিলেটের একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। অসুস্থ স্ত্রী ও দুই শিশু নিয়ে সুফি মিয়া পড়েন বিপদে। স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য তাঁর হাতে ছিল না টাকা। অন্যদিকে মাকে না পেয়ে দুই শিশু কেঁদে অস্থির। এ নিয়ে প্রথম আলো অনলাইনে ২৬ আগস্ট ‘যমজ দুই সন্তান দুধের জন্য কাঁদছে, আইসিইউতে করোনায় আক্রান্ত মা’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

সংবাদ প্রকাশের পর ওই মায়ের চিকিৎসা ও যমজ দুই সন্তানের দুধের খরচ দেওয়ার জন্য অনেকেই সুফি মিয়ার পাশে দাঁড়ান। সৈয়দপুর গ্রামের কিছু তরুণ টাকা সংগ্রহ ও ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হোয়াটসঅ্যাপে একটি গ্রুপ চালু করেন। ইতিমধ্যে প্রবাসীসহ বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়েছেন। অবশেষে ১৫ দিন চিকিৎসা শেষে বৃহস্পতিবার রাতে বাড়িতে ফেরেন তিনি।

রিনা বেগম শুক্রবার বলেন, এলাকার মানুষের দোয়া ও ভালোবাসায় নতুন জীবন ফিরে পেয়েছেন। সন্তানদের কাছে ফিরতে পেরে তিনি খুব খুশি।

সুফি মিয়া বলেন, স্ত্রীর চিকিৎসা ও সন্তানের দুধের জন্য বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ আর্থিক সহায়তা দেওয়ায় তিনি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা সায়েকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, অস্ত্রোপচারের পরপরই করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় ওই মায়ের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে। তিনি সুস্থ হয়ে সন্তানের কাছে ফিরে এসেছেন, সংবাদটি খুবই আনন্দের।

DailyMoulvibazar.Com এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।