DailyMoulvibazar.com
মৌলভীবাজারমঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. এভিয়েশন
  6. করোনা সর্বশেষ
  7. কৃষি ও প্রকৃতি
  8. ক্যাম্পাস
  9. খেলা
  10. গণমাধ্যম
  11. চাকুরি
  12. ছোটদের পোস্ট
  13. জাতীয়
  14. জোকস
  15. ট্যুরিজম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শিক্ষায় মডেল রাষ্ট্রের সন্ধানে ওয়েবিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী
জুলাই ৪, ২০২১ ১২:৫৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

অনলাইন প্লাটফর্মে ‘শিক্ষায় মডেল রাষ্ট্রের সন্ধানে : প্রসঙ্গ সিঙ্গাপুর’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৩ জুলাই) বিকেলে বিসিএস এডুকেশন একাডেমি ও বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার উন্মুক্ত মঞ্চ এ ওয়েবিনারের আয়োজন করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এই আয়োজন করা হয়।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক।

ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রাজশাহী কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. ওয়াসীম মো. মেজবাহুল হক। স্বাগত বক্তব্য দেন বৃন্দাবন সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক জিয়া আরেফিন আজাদ।

এতে নির্ধারক আলোচক ছিলেন- চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও কানাডার ওন্টারিও প্রদেশের শেরিডান কলেজের অধ্যাপক ড. একে এম খায়রুল ইসলাম এবং সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড কালচারাল ফাউন্ডেশন বাংলা স্কুলের অধ্যক্ষ রুবাবা ইসলাম সাবেদ।

ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের সহকারী অধ্যাপক কাজী জাকির হোসেন।

ওয়েবিনারে বক্তারা বলেন, মডেল রাষ্ট্র সিঙ্গাপুরে শিক্ষা ক্যাডারভুক্ত শিক্ষকরাই শিক্ষা প্রশাসনের সব দায়িত্ব পালন করছেন। তদারকি করার জন্য অন্য কোনো পেশার কর্মীদের এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হয় না। শিক্ষক ও শিক্ষা প্রশাসনের এই বিচ্ছিন্নতা আমাদের শিক্ষার দুর্দশার অন্যতম কারণ।

তারা বলেন, সিঙ্গাপুরে একজন প্রার্থী আমাদের দেশের মতো উচ্চশিক্ষা শেষে শিক্ষকতায় প্রবেশ করেন না। সেখানে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা শেষ করার পর একজন প্রার্থী তার পেশা বেছে নেন। কঠিন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষকতার জন্য যিনি নির্বাচিত হন, রাষ্ট্র তাকে শিক্ষক হিসেবে নির্মাণের জন্য ছয় বছরের পড়াশোনা, প্রতিষ্ঠান সম্পৃক্ত ও গবেষণার ব্যবস্থা করে দেন। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শিক্ষা সার্ভিসের একজন সদস্য একই সঙ্গে শিক্ষক, শিক্ষাবিদ ও শিক্ষা প্রশাসক হিসেবে গড়ে উঠেন। পরবর্তীতে তার ক্যারিয়ারের গতি নির্ধারিত হয় পছন্দ ও যোগ্যতা অনুসারে।

বক্তারা আরও বলেন, প্রথম তিন বছরের বাধ্যতামূলক শ্রেণিকক্ষ শিক্ষকতার পর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগের কাজের মধ্যে আন্তঃযাতায়াতের সুযোগ রয়েছে। সব মিলিয়ে মেধার মূল্যায়ন, নিবিড় পর্যবেক্ষণ এবং রাষ্ট্রীয় বরাদ্দ ও যত্নের কারণে সিঙ্গাপুর আজ এই ফল পেয়েছে। সেখানে শিক্ষকদের কাজে সন্তুষ্টি রয়েছে। 

ওয়েবিনারে আলোচকরা বলেন, বাংলাদেশে শিক্ষায় অতি নিম্ন ব্যয় করা হয়, যা দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বনিম্ন (জিডিপির ১.৮ ভাগ)। আমাদের শিক্ষক নিয়োগেও মারাত্মক ত্রুটি রয়েছে। পেশাগত সন্তুষ্টির বিষয়টিও নিষ্পত্তি করতে হবে, যাতে মেধাবীদের আকৃষ্ট করা যায়। এছাড়া মেধার মূল্যায়নের জন্য শিক্ষকদের পদোন্নতিতে কিছু ভিন্ন শর্ত আরোপের সুপারিশ করেন বক্তারা।

কোভিড সংক্রমণের সময় সিঙ্গাপুর কীভাবে কাজ করছে তা ব্যাখ্যা করেন বক্তারা। এছাড়া বিভিন্ন উন্নত দেশের শিক্ষা মডেল নিয়ে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে বাংলাদেশের শিক্ষকদের জন্য সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ ব্যাখ্যা করা হয় ওয়েবিনারে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় অনেক উল্লেখযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তবে প্রগতির গতি যথেষ্ট শ্লথ। ১৯৭৩ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাদেশ যে উদ্দেশ্যে প্রণয়ন করা হয়েছিল তার কতটুকু আজ অনুসৃত হচ্ছে তিনি সেটি পুনর্মূল্যায়নের তাগিদ জানান।

শিক্ষকদের গুণগত মান বৃদ্ধির জন্য গবেষণার ওপর গুরুত্বারোপ করেন ফজলে হোসেন বাদশা। তিনি বলেন, পেশা হিসেবে শিক্ষকতায় গতি আনার জন্য মধ্যবর্তী মূল্যায়ন ও পেশায় বিভিন্ন শাখায় আন্তঃযোগাযোগের সুযোগ সৃষ্টি করা যায় কি না সেটা দেখা দরকার। তিনি প্যানডেমিকের এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিকল্প পদ্ধতিগুলো প্রয়োগ করে শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন পথ খুলে দিতে শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানান।

DailyMoulvibazar.Com এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।